Wednesday, August 4, 2021

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল যেন মৃত্যুপুরি আজও প্রান দিলেন ২২ জন আক্রান্ত-৩৮০

জুবায়ের খন্দকার, ময়মনসিংহ জেলাপ্রতিনিধিঃ

istaharnews saradesh

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে রোগীদের মাত্রাতিরিক্ত চাপ বেড়ে যাওয়ায় নির্ধারিত বেড়ের চাইতে দ্বিগুণ রোগী এখন ভর্তি রয়েছে। আর রোগীর এই চাপ সামলাতে অযাচিত বেগ পেতে হচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে। এমনটা জানালেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

 

এদিকে হাসপাতালের একটি সূত্র জানায় যে, ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ১৭০ টি সাধারণ বেড, ৪০ টি কেবিন, ২০ টি আইসিইউ এবং ১০ টি এইচডিইউসহ ২৪০ টি বেডের অনুমোদন থাকলেও ওয়ার্ডটিতে বুধবার সকাল পর্যন্ত ৫৫৩ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন। বর্তমানে করোনা ইউনিটে ডাক্তারসহ অন্যান্য জনবল পর্যাপ্ত না থাকায় অতিরিক্ত রোগীদের সঠিক চিকিৎসা সেবা পেতে বিলম্ব হচ্ছে। আর গুরুতর রোগীদের আইসিইউয়ের জন্য দীর্ঘ অপেক্ষা করতে হচ্ছে।  কোনো রোগী সুস্থ হলে কিংবা মারা গেলেই কেবল আইসিইউ পাওয়া যাচ্ছে। গতকাল মঙ্গলবার হাসপাতালটিতে আইসিইউ বেড না পেয়ে তীব্র অক্সিজেন সংকটে মারা গেছেন ময়মনসিংহের অতিরিক্ত আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা এবিএম সাইফুজ্জামান শাহিন। নতুন করে অনেক রোগী ভর্তি হতে আসলেও বেড খালি না থাকায় অনকে রোগী ভর্তি হতে পারছে না।

 

মৃত্যুর মিছিলে আজ আরো ২২ জন যোগ দিলেন। ৪ঠা আগষ্ট বুধবার সকালে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন ইউনিটের কনসালটেন্ট ও করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডাঃ মোঃ মহিউদ্দিন খান মুন গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে নিয়মিত ব্রিফকালে জানান-গেল ২৪ ঘন্টায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ময়মনসিংহ জেলা এবং জেলার বাইরের ২২ জনের মধ্যে ১০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়ে এবং ১২ জন করোনা উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। এছাড়াও গত ২৪ ঘন্টায় ময়মনসিংহ জেলায় ৩৮০ জনের দেহে করোনার অস্তিত্ব শনাক্ত হয়েছে ও মারা গেছেন অন্তত আরও ৫ জন।

 

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন যারা-ময়মনসিংহ সদর উপজেলার খলিলুর রহমান (৭৫),  সাইফুজ্জামান (৩৯), গিয়াসউদ্দিন (৬২), সারোয়ার জাহান (৮১), মমতাজ বেগম (৮০),  গৌরীপুর উপজেলার মোঃ মোবারক হোসেন শান্ত (১৬), নেত্রকোনা জেলার পূর্বধলা উপজেলার আলমপুর এলাকার আব্দুর রউফ (৩৫), টাংগাইল জেলার মধুপুর উপজেলার আমেনা বেগম (৮০) এবং ঘাটাইল উপজেলার আবেদা খাতুন (৬০)।

 

করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেলেন যারা-ময়মনসিংহ সদর উপজেলার মোঃ সাইফুল (৬৫), সাইমুন নেসা (৬৫), শামসুদ্দিন (৯০), আব্দুল হেলিম (৭০), ফজিলা খাতুন (৬০), ত্রিশাল উপজেলার ধানিখোলা এলাকার হামিদা খাতুন (৪৬), মুক্তাগাছা উপজেলার খলিলুর রহমান (৫৮), ফুলপুর উপজেলার আকবর (৭০), তারাকান্দা উপজেলার আবু সালেহ (৫৫), আব্দুল খালেক (৬৭), নেত্রকোনা সদর উপজেলার জুলেখা (৬৫) এবং পূর্বধলা উপজেলার হাবিবুর রহমান (৬২)।

 

বর্তমানে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে রোগী ভর্তি আছেন ৫৫৩ জন। এদের মধ্যে আইসিইউতে ভর্তি আছেন ২২জন।

 

গতকাল মঙ্গলবার রাতে ময়মনসিংহ সিভিল সার্জন অফিস থেকে প্রাপ্ত তথ্য মতে করোনা টেষ্টের প্রতিবেদন অনুযায়ী ময়মনসিংহ জেলায় গত ২৪ ঘন্টায় র‌্যাপিড এন্টিজেন টেষ্টে ১৭২ জন ও আরটিপিসিআর টেষ্টে ২০৮ জন মোট ৩৮০ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে ময়মনসিংহ সদর উপজেলায় ১৮৬ জন, ত্রিশাল উপজেলায় ২৬ জন, ভালুকা উপজেলায় ২৬ জন, গফরগাঁও উপজেলায় ৪৪ জন, মুক্তাগাছা উপজেলায় ১৬ জন, ফুলবাড়িয়া উপজেলায় ১৩ জন, ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলায় ১৫ জন, গৌরীপুর উপজেলায় ৯ জন, ফুলপুর উপজেলায় ১৩ জন, তারাকান্দা উপজেলায় ১০ জন, হালুয়াঘাট উপজেলায় ১৫ জন, নান্দাইল উপজেলায় ৬ জন এবং  ধোবাউড়া উপজেলায় ১ জন।

 

এ পর্যন্ত ময়মনসিংহ জেলায় মোট ১৬৩৭৫ জনের করোনা শনাক্তের পর সুস্থ হয়েছেন ১১৮৮১জন। বাকি ৪৪৯৪জন রোগী এখনও জেলার বিভিন্ন হাসপাতাল ও বাড়িতে চিকিৎসা নিচ্ছেন। ময়মনসিংহ জেলায় এ পর্যন্ত মারা গেছেন ১৭৫ জন।

Previous Post
Next Post
Related Posts

0 comments: