Monday, August 2, 2021

করোনা প্রতিটি মূহুর্তে যেন হাতছানি দিয়ে ডাকে আজও মৃত্যু ২৩ আক্রান্ত ৪৯৫

জুবায়ের খন্দকার, ময়মনসিংহ জেলা প্রতিনিধি।।

istahar sardesh news

করোনা আর মৃত্যু এখন যেন একই সূতায় গাঁথা। প্রতিটি মূহুর্তেই যেন মৃত্যু হাত ছানি দিয়ে ডাকে। সব সময় একটা আতংকের মধ্য দিয়ে প্রতিটা দিন আর রাত কাটাতে হয় নির্ঘুমে। অনেকে তো এখন এই করোনর জন্য নিশাচর হয়ে গেছেন। এমনও শুন গেছে সংসারের দায়িত্ববানেরা যখন ক্লান্ত শরীর নিয়ে বিছানায় গভীর ঘুমে তখন অন্যজন বারবার সেই ঘুমন্ত ব্যক্তিটির পাশে যেয়ে দেখেন তার দেহে প্রান আছে তো?

 

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে আজ ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার সকালে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন ইউনিটের কনসালটেন্ট ও করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডাঃ মোঃ মহিউদ্দিন খান মুন জানান-গত ২৪ ঘন্টায় ময়মনসিংহ জেলা এবং জেলার বাইরে ২৩ জনের মধ্যে ৭ জন করোনায় আক্রান্ত হয়ে ও ১৬ জন করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন। এছাড়া গত ২৪ ঘন্টায় ময়মনসিংহ জেলায় ৪৯৫ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে ও মারা গেছেন ৬জন।

করোনা পজেটিভ হয়ে মারা গেছেন যারা- ময়মনসিংহ সদর উপজেলার মোঃ আবিদ মিয়া (৪৫),  মাহবুব (৪০), লাইলী বেগম (৫০), ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার আলতাফ উদ্দিন (৮৫), হালুয়াঘাট উপজেলার আবুল হোসেন (৭০), নেত্রকোনা সদর উপজেলার রাজা আলী (৭০) এবং মোহনগঞ্জ উপজেলার বিউটি আক্তার (৫০)।

 

করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন যারা- ময়মনসিংহ সদর উপজেলার শম্ভুগঞ্জের আব্দুল মজিদ (৫৫), গিয়াসউদ্দিন (৬৫), মুক্তাগাছার আব্দুল খালেক (৬০), রবি সেন (৬০), ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার আব্দুল হাই (৭০), ফুলবাড়িয়া উপজেলার মকবুল হোসেন (৬৫), গফরগাঁও উপজেলার নূরজাহান (৭০), ফুলপুর উপজেলার সূরুজ আলী (৬০), তারাকান্দা উপজেলার আব্দুল হাকিম (৭০), আব্দুল জব্বার (৬৩), নেত্রকোনা সদর উপজেলার অলি (১৭), জামালপুর সদর উপজেলার গাজিবুর (৬৫), সরিষাবাড়ি উপজেলার সেতারা (৫০), দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার আফসার আলী (৬৫), গাজীপুরের সাজেদা আক্তার (৩০) এবং শ্রীপুর উপজেলার মালেকা বানু (৭০)।

বর্তমানে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে রোগী ভর্তি আছেন ৫৩৫ জন যাদের মধ্যে আইসিইউতে ভর্তি আছেন ২৫ জন।

গতকাল রবিবার রাতে সিভিল সার্জন অফিসের করোনা টেষ্টের প্রতিবেদন অনুযায়ী-ময়মনসিংহ জেলায় গত ২৪ ঘন্টায় র‌্যাপিড এন্টিজেন ও আরটিপিসিআর টেষ্টে পজেটিভ হয়েছেন ৪৯৫ জন। এরমধ্যে র‌্যাপিড এন্টিজেন টেষ্টে ২৫৮ জন আর আরটিপিসিআর টেষ্টে ২৩৭ জন।

Previous Post
Next Post
Related Posts

0 comments: